বার্তাবাংলা ডেস্ক »

যখন ব্যাটিংয়ে নামলেন, দশ ওভারের মধ্যেই ৬ উইকেট হারিয়ে বিপদে দল। শেষের দশ ওভারে জিততে তখনো প্রয়োজন ১১৯ রান, হাতে ৪ উইকেট। ৮ নম্বরে নামা ইসুরু উদানা মনস্থির করলেন, তিনি লড়বেন একাই। কিন্তু পারেননি দলকে জেতাতে।

ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ ৭৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন উদানা, দেখিয়েছিলেন ব্যাটিংটাও বেশ ভালোই পারেন বাঁহাতি এ পেসার। শুক্রবার টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও রাখলেন তার প্রমাণ।

দলের অন্যদের ব্যর্থতার ভিড়ে উদানার ব্যাট থেকে এসেছে ৪৮ বলে ৮৪ রানের ঝড়ো ইনিংস। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার করা ১৮০ রানের জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬৪ রানের বেশি করতে পারেনি শ্রীলঙ্কা। ১৬ রানের জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে স্বাগতিকরা।

সেঞ্চুরিয়নে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই এইডেন মারক্রামের উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১১৬ রান যোগ করেন রেজা হেনডরিকস ও ফন ডার ডুসেন। ৪৬ বলে ৬৫ রানের ইনিংস খেলেন হেনডরিকস, ৪৪ বলে ৬৪ রান করেন ডুসেন।

শেষদিকে অধিনায়ক জেপি ডুমিনি ২টি করে চার-ছক্কার মারে ১৭ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন। ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রানের দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস। ১টি করে উইকেট নেন ইসুরু উদানা, আকিলা ধনঞ্জয় এবং লাসিথ মালিঙ্গা।

রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ৬২ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে শ্রীলঙ্কা। ৮৩ রানের মাথায় সপ্তম উইকেট হারানোর পর দলের দায়িত্ব একা হাতে নিয়ে নেন উদানা। ক্যারিয়ারের প্রথম হাফসেঞ্চুরিতে দলকে নিয়ে ১৬৪ রান পর্যন্ত। শেষপর্যন্ত ৪৮ বলে ৮ চার ও ৬ ছক্কার মারে ৮৪ রানের অপরাজিত থাকেন উদানা।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »