বার্তাবাংলা ডেস্ক »

অসদাচরণের অভিযোগ এনে তিন বছরের জন্য বহিষ্কার করা হলো জাতীয় দলের সাবেক পেসার শেখ রবিউল ইসলাম শিবলুকে। গত ৬ মার্চ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট সাব কমিটির চেয়ারম্যান অনিন্দিতা রায় স্বাক্ষরিত পত্রে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

পত্রে বলা হয়েছে, ক্রিকেট সাব কমিটির ৫ মার্চের সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থা পরিচালিত ক্রিকেট কার্যক্রমসহ সকল প্রকার ক্রীড়া কার্যক্রম থেকে (খেলোয়াড়, টিম ম্যানেজার, কোচ) আগামী তিন বছরের জন্য শেখ রবিউল ইসলাম শিবলুকে বহিষ্কার করা হলো।

জানা গেছে, অসদাচরণের অভিযোগে ক্রিকেটার শেখ রবিউল ইসলাম শিবলুকে ২৫ ফেব্রুয়ারি শোকজ নোটিশ দেয় জেলা ক্রীড়া সংস্থা। ওই সময় তাকে ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে শোকজের লিখিত জবাব দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। তবে তার দেওয়া জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় ক্রিকেট সাব কমিটির ৫ মার্চের সভায় তাকে তিন বছরের জন্য বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বহিষ্কারের বিষয়ে ক্রিকেটার রবিউল ইসলাম শিবলু বলেন, ‘বহিষ্কারের বিষয়টি জেনেছি। আমি কারোর সাথে খারাপ ব্যবহার করিনি। আমার কাছে জবাব চাওয়া হয়েছিল আমি উত্তর দিয়েছি। সন্তোষজনক না হলে সেটি তাদের ব্যাপার।’

বহিষ্কারের ঘটনার ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, ‘আমাকে কেন বা কি কারণে বহিষ্কার করা হলো, সেটি আমি বুঝি না। আমি যেটুকু জানি মিটিংয়ের সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও সাতক্ষীরা জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট সাব কমিটির চেয়ারম্যান অনিন্দিতা রায় ম্যাডাম ছিলেন না। জেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রেরিত কাগজে তিনি স্বাক্ষর করেছেন। আমি ন্যাশনাল টিমের ক্রিকেটার, সাতক্ষীরার ক্রিকেটার। অথচ আমাকে সাতক্ষীরা জেলা টিমে নেওয়া হয় না। আমার সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়। আমাকে জেলা টিমে না রাখার কারণ জিজ্ঞেস করা যদি আমার অপরাধ হয় তবে আমি অপরাধী। বাস্তবিক অর্থে আমি লোকাল ক্রীড়া সংস্থার রাজনীতির শিকার।’

ক্রিকেটার রবিউল ইসলাম শিবলু আরও বলেন, ‘এই ষড়যন্ত্রের কারণে আমি খেলা থেকে অবসরের ঘোষণা দিয়েছি। তবে খেলা চালিয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে জাতীয় লিগে খেলছি। কারো সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করলে ডিভিশন টিম আমাকে কেন নেবে?’

জেলা ক্রীড়া সংস্থার বহিষ্কার সিদ্ধান্তের পর কি পদক্ষেপ নিচ্ছেন এমন প্রশ্নে জাতীয় দলের হয়ে ৯ টেস্ট, ৩ ওয়ানডে আর একটি টি-টোয়েন্টি খেলা এই পেসার বলেন, ‘এখনো চিন্তা করিনি। তবে তাদের সিদ্ধান্তটি সঠিক হয়নি।’

এদিকে, ক্রিকেটার রবিউল ইসলাম শিবলুর প্রতি জেলা ক্রীড়া সংস্থার বৈষম্যমূলক আচরণ ও ষড়যন্ত্রের শিকার এসব অভিযোগের বিষয়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি আনিসুর রহমান বলেন, ‘তার সঙ্গে কি আমার জমি নিয়ে দ্বন্দ্ব আছে যে বৈষম্যমূলক আচরণ করবো?’

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »