বার্তাবাংলা ডেস্ক »

উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের সৎ ভাই কিম জং ন্যামকে হত্যার ঘটনায় ইন্দোনেশিয়ার সন্দেহভাজন এক নারীকে মুক্তি দেয়া হয়েছে।

২০১৭ সালে উচ্চ মাত্রার টক্সিক ভিএক্স নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে ন্যামকে হত্যা করা হয়। ন্যামের মুখে বিষাক্ত রাসায়নিক লাগিয়ে দেয়ায় ভিয়েতনামের দোয়ান থি হুওং (২৯) এবং ইন্দোনেশিয়ার সিতি আয়সার (২৫) বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।

ওই দুই নারী দাবি করেছিলেন যে, উত্তর কোরিয়ার প্রতিনিধিরা তাদের প্রতারিত করেছেন। সিতি আয়সা জানান একটি প্রাঙ্ক ভিডিও বানানোর জন্য তাকে মাত্র ৯০ ডলার (৪০০ রিঙ্গিত) দেয়া হয়েছিল। তিনি জানতেন না যে, এটা একটা হত্যাকাণ্ড।

দোয়ান থি হুওং নামে ভিয়েতনামের যে নারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছিল তিনিও একই কথা বলেছেন। তিনিও ভেবেছিলেন এটা টেলিভিশনের একটি প্রাঙ্ক ভিডিওর অংশ।

উচ্চ মাত্রার ভিএক্স নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করে ন্যামকে হত্যার ঘটনায় পুরো বিশ্বকে হতবাক হয়েছিল। সে সময় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রধান শিরোনাম হিসেবে প্রচার করা হয়।

এই মামলার প্রসিকিউটর অভিযুক্ত সিতির বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ তুলে নেয়ার অনুরোধ জানালে বিচারক তাতে অনুমোদন দিয়েছেন। এক শুনানিতে বিচারক বলেন, সিতি আয়সাকে মুক্তি দেয়া হলো।

ওই হত্যাকাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত হলে সিতি আয়সাকে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে হতো। সিতি আয়সা আদালত ছেড়ে যাওয়ার সময় এএফপিকে বলেন, আমি খুব খুশি। আমি জানতাম না এমনটা হবে। আমি এমনটা আশাও করিনি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »