ইয়াসমিন লিপি »

Dating App

নেত্রকোনায় কলাবাগান থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতকটি দীর্ঘ একমাস পর পেল অভিভাবক। আইনি জটিলতা শেষে মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে শিশুটিকে নতুন বাবা মায়ের হাতে তুলে দেয়া হয়।

এসময় শিশু কল্যাণ বোর্ডের সদস্যদের নিয়ে জেলা প্রশাসক কাজি আবদুর রহমান ও পুলিশ সুপার মো. আকবর আলী মুনসী শিশুটিকে নিঃসন্তান এক দম্পতির হাতে তুলে দেন। এর আগে অভিভাবক বাছাই শেষে গত ২৫ আগস্ট শিশুটির নামকরণ করা হয় ফাতিমা বিনতে খান। মদন উপজেলার বালালী গ্রামের রুহুল আমিন খানের নামানুসারে শিশুটির নামকরণ করা হয়।

রুহুল আমিন খান দম্পতিও জায়গা লিখে দিয়ে শিশুটিকে নিজের সন্তান হিসেবে পেয়ে আনন্দিত। তারা আলোকিত মানুষ হিসেবে শিশুটিকে গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য গত ৯ আগস্ট ঠিক একমাস পূর্বে নেত্রকোনা জেলা সদরের কাইলাটি ইউনিয়নের ফচিকা এলাকার একটি কলাবাগানে নবজাতকটি পরে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশের জরুরি সেবায় ৯৯৯ কল দেন। পরে মডেল থানার পুলিশ সেখান থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে সমাজ সেবার মাধ্যমে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের শিশু বিভাগে ভর্তি করেন।

উপজেলা শিশু কল্যাণ বোর্ডের সদস্য সচিব ও উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. আব্দল্লাহ আল মামুন বলেন, শিশুটিকে নিতে ছয় দম্পতি আবেদন করেছিলেন। কিন্তু যাচাই বাছাই করে এবং সকল শর্তে রাজি হয়ে জমি লিখে দেয়ার পর শিশুটিকে আমরা রুহুল আমীন দম্পতির কাছে দেবার সিদ্ধান্ত নেই। ভবিষ্যতে তাদের কোন সন্তান জন্ম নিলেও ফাতিমা তাদের প্রথম সন্তান হিসেবে সকল স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তিতে সমান অধিকার ভোগ করবে।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »