আমীর হোসেন »

Dating App

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার নিজেদের আয়নায় এখন কেবল বিএনপিকে কল্পনা করছে। কাদের সাহেবের কথাটা হবে ‘আওয়ামী লীগ জনরোষের আতঙ্কে আছে।’ কিন্তু তিনি উল্টো দিকে ঘুরিয়ে ফেলেছেন কথাটা। নিজেদের অবস্থাটা এখন অন্যের ভেতরে দেখতে চাচ্ছেন। অনুভব বা অনুমান করছেন যে তাদের কী ভয়াবহ অবস্থা।

শুক্রবার (২৪ জুলাই) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এ মন্তব্য করেন। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) নিজ বাসায় ভিডিও কনফারেন্সে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি এখন মানসিকভাবে বিপন্ন। বিএনপি নিজেরাই জনরোষের ভয়ে আছে’। এর জবাবে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বিএনপি আতঙ্কিত হবে কেন? বিএনপি কি চাল চুরি, তেল চুরি, ত্রাণ চুরি, করোনার টেস্ট কিট দুর্নীতি, ব্যাংক লোপাট, রাজকোষ চুরি, শেয়ার বাজার লুণ্ঠন, রাতের অন্ধকারে জনগণের ভোট ডাকাতির কাজে লিপ্ত ছিল? দেশব্যাপী চুরি, ডাকাতি ও লুটের সঙ্গে আওয়ামী লীগের জড়িত থাকাটা শুধু দেশীয় গণমাধ্যম না, আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও প্রচার হচ্ছে। সুতরাং জনরোষের ভয়ে আপনারা এখন প্রলাপ বকছেন।

রিজভী বলেন, করোনা সংকটের কারণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুরবস্থা জনগণের সামনে স্পষ্ট হয়ে পড়েছে। এই অবস্থায় দু‘একজনকে গ্রেপ্তার, বদলি কিংবা পদত্যাগ করিয়ে কিংবা দুই একটা মন্ত্রণালয়ের রদবদল করে পরিস্থিতির উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, অপ্রিয় হলেও সত্য নিশিরাতের ষড়যন্ত্রের যারা সক্রিয় ভূমিকা রেখেছিল তাদের মধ্যে থেকে ‘ইধার কি মাল উধার মে ঢাল’ কিংবা ‘চোরে চোরে মাসতুতো’ ভাইদের দিয়ে পরিস্থিতি উন্নয়নের আশা করে লাভ নেই। কারণ এই ‘মাসতুতো’ ভাইয়েরা জানে তাদের ‘অবস্থা-অবস্থান-উত্থান’ ঘটেছে দুর্নীতি প্রক্রিয়া, দুর্নীতিবাজদের মাধ্যমে, দুর্নীতিবাজদের দ্বারা। বাস্তবতা হলো, পরিস্থিতির উন্নয়ন ঘটাতে চাইলে জনগণের স্বার্থ রক্ষায় গোটা সরকারেরই খোলনলচে পাল্টাতে হবে। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীসহ এই সরকারের পদত্যাগ করতে হবে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, এই সরকারের গত এক দশকে দেশ থেকে ৯ লক্ষ কোটি টাকা পাচার হয়েছে। রাষ্ট্রের আনুকূল্যেই এই অর্থ লোপাট ও পাচারের কাজগুলো হয়েছে। এসব টাকা থাকলে সরকারকে এখন দেশের রিজার্ভের টাকার দিকে নজর দিতে হত না বলেও জানান তিনি।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »