আমীর হোসেন »

Dating App
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ভুয়া এন নাইটি ফাইভ মাস্ক সরবরাহ করে চিকিৎসক-নার্সদের ঝুঁকিতে ফেলেছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড। ডিবিসি টিভি

গোয়েন্দা প্রতিবেদনসহ একাধিক মাধ্যমে এ নিয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। এ অভিযোগ অনুসন্ধানে আগামী রবি বা সোমবার অনুসন্ধান টিম গঠন করতে পারে সংস্থাটি।

আমেরিকার তৈরি এন-নাইনটি ফাইভ মাস্কের মতো করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা আর কোনো মাস্ক দিতে পারে না। দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষায় এই এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জেএমআই পায় মাস্ক সরবরাহের কাজ।

সরবরাহ পাওয়ার পর কেন্দ্রীয় ঔষধাগার রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালসহ কয়েকটি হাসপাতালে ওই মাস্ক পাঠায়। কিন্তু চিকিৎসকরা এগুলোর মান নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এরপর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটির প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে জমা দিলেও তার বিষয়বস্তু নিয়ে কথা বলতে চান না তদন্ত কমিটির প্রধান।

এমন অবস্থায় এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক কেনাকেটায় দুর্নীতির গোয়েন্দা তথ্য আসে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকে। আরও কিছু মাধ্যমেও কেনাকাটায় দুর্নীতির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেয়েছে সংস্থাটি।

এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক কিনতে সরকার একশো কোটি টাকা বরাদ্দ করে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জেএমআই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ভুয়া এন নাইনটি ফাইভ মাস্ক সরবরাহ করেছে বলে গোয়েন্দা ও অন্যান্য সূত্রে জানতে পেরেছে দুদক।

এছাড়া, সরবরাহ করা মাস্ক মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় তৈরি করা হয় এবং মহামারীর সুযোগে ভুয়া মাস্ক তৈরি করে এন নাইনটি ফাইভের প্যাকেটে চালিয়ে দেয়া হয়।

দুদক বলছে, দুর্নীতির প্রমাণ মিললে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »