বার্তাবাংলা ডেস্ক »

Dating App

সারা মাস এবং সপ্তাহজুড়েই নানান আয়োজন থাকছে জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল ‘দীপ্ত টিভি’তে। মহান স্বাধীনতা দিবসেও থাকছে নানান আয়োজন।

তুর্কি ধারাবাহিক ‘ফাতমাগুল‘
প্রচারিত হচ্ছে শনি থেকে শুক্রবার প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টায়

সাগরের কোল ঘেঁষে বেড়ে ওঠা ছোট্ট গ্রাম ইল্দির। যেখানে দিগন্ত জোড়া জলরাশির হাতছানিতে সাড়া দেয় দুরন্ত গাঙচিল। তাদের ছন্দে আনমনে গুনগুনিয়ে যায় এই গ্রামেরই মেয়ে ফাতমাগুল। গুল মানে গোলাপ। বাবা মা আদর করে ফুলের নামে নাম রাখলেও, মেয়েটির জীবনে আর কোথাও ছিলো না ফুলেল কোমলতার ছোঁয়া। সহজ সরল বড় ভাই রাহমি আর কুটিল ভাবী মুকাদ্দেসের সংসারে প্রতিনিয়ত গালমন্দ আর অবহেলা সহ্য করে দিন কাটে ফাতমাগুলের। ওর স্বান্তনা শুধু একটাই। ছোট্ট বেলার প্রেম মুস্তফা নালচালির ঘরনী হয়ে তারও একদিন একটা সুখের সংসার হবে। কিন্তু হঠাৎ এক ঝড়ে তছনছ হয়ে যায় ফাতমাগুলের সাজানো স্বপ্ন। উচ্চবিত্ত ইয়াশারান পরিবারের বখাটে ছেলে সেলিম, অ্যারদোয়ান আর তার সঙ্গীদের উম্মাদনায় ফাতমাগুলকে হারাতে হয় তার সম্ভ্রম আর সমাজের তথাকথিত নারীর সম্মান। এ দুর্যোগে কেউ তার পাশে এসে দাঁড়ায়নি! এমনকি ছোট্ট বেলার প্রেম মুস্তফা নালচালিও তাকে ফিরিয়ে দেয়, পুড়িয়ে দেয় স্বপ্নীল সংসারের শেষ চিহ্নটুকু। গ্রাম ছেড়ে শহরে পাড়ি জমাতে বাধ্য হয় অসহায় মেয়েটি। কী ছিলো ফাতমাগুলের অপরাধ? তবে কী নারী হয়ে জন্মানোটাই তার অপরাধ? না কি ফাতমাগুল প্রমাণ করে দেখাবে অপরাধী যত শক্তিশালীই হোক বিচার তার হবেই!

ধারাবাহিক নাটক ‘ মান অভিমান’

শনি-বৃহস্পতি সপ্তাহে ছয়দিন সন্ধ্যা ৭টায়

বীথির চাকরির বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে রাহাত ও তার বোনেরা। বীথিকে রিজাইন দিতে বলে ওরা। কিন্তু বীথির যুক্তি-তর্কের কাছে হার মানতে বাধ্য হয়, বীথি থেকে যায় চাকরিতে। অনিমারা ষড়যন্ত্র করতে থাকে যেভাবেই হোক বীথিকে অফিস থেকে তাড়াতে হবে। এসবের মাঝেই ডাক্তার খালেদ ময়মনসিংহে রানুদের বাড়িতে আসে। ঠিক হয় রানুর সাথে খালেদের বিয়ের তারিখ। অন্যদিকে চলতে থাকে রাহাত-ফারিয়ার বিয়ের প্রস্তুতি। রাহাত আর রানু কি তাদের ভালোবাসাকে বিসর্জন দিয়ে, অন্য কাউকে বিয়ে করে সুখী হতে পারবে? জেন অস্টেন রচিত ‘প্রাইড এন্ড প্রেজুডিস’ এর অনুপ্রেরণায় নির্মিত ধারাবাহিক নাটকটির চিত্রনাট্য নাসিমুল হাসান ও সংলাপ করেছেন সরোয়ার সৈকত। আশিস্ রায় পরিচালনায় এ নাটকে অভিনয় করেছেন রোজী সিদ্দিকী, তোফা হাসান, সমাপ্তি মাশুক, ইফফাত আরা তিথি, শিবলী নওমান, সানজিদা ইপসা, আরমান পারভেজ মুরাদ, তানিন তানহা, শেলী আহসান, সানজিদা মিলা, তেরেজা চৈতি, ইমিলা হক, জেবুন্নেসা সোবহান, সুজাত শিমুল, কাজী রাজু, অশোক ব্যাপারীসহ আরো অনেকে।

জনপ্রিয় তুর্কি ধারাবাহিক “সুলতান সুলেমান“
প্রচারিত হচ্ছে শনি থেকে শুক্রবার প্রতিদিন রাত ৭টা ৩০ মিনিটে

প্রায় সাতশ বছর ধরে তুরষ্কের অটোম্যান সা¤্রাজ্যের রাজত্ব ছিল পৃথিবী জুড়ে। এই সা¤্রাজ্যের স্বর্ণযুগ ছিল সুলতান সুলেমানের নেতৃত্বে ষোড়শ থেকে সপ্তাদশ শতাব্দী। ক্ষমতার টানাপোড়নে অটোম্যান সা¤্রাজ্যের ষড়যন্ত্রে, গুপ্তহত্যা, ভাই হত্যা, সন্তান হত্যা এবং দাসপ্রথার অন্তরালে কাহিনী নিয়ে র্নিমিত এই মেগা-সিরিয়াল। এখানে জীবন্ত হয়ে উঠেছে সুলতানকে প্রেমের জালে আবদ্ধ করে, এক সাধারণ দাসীর সা¤্রাজ্ঞী হয়ে উঠার কাহিনী। যার প্রতিদ্বন্দী ছিল সুলেমানের প্রথম প্রেম মাহিদেভ্রান সুলতান, সুলেমানের মা আয়েশা হাফসা সুলতানা, সুলতানের বাল্যবন্ধু এবং পরবর্তীতে স¤্রাজ্যের প্রধান উজির ইব্রাহিম পাশা।

ধারাবাহিক নাটক ‘ভালোবাসার আলো-আধাঁর‘
প্রচারিত হচ্ছে শনি থেকে বৃহস্পতি সপ্তাহে ছয়দিন রাত ৮টা ৩০মিনিটে

ফাহমিদুর রহমানের চিত্রনাট্য ও কলিন রড্রিকের সংলাপে রচিত এই ধারাবাহিকটি পরিচালনা করেছেন গোলাম সোহরাব দোদুল। অভিনয় করেছেন সুষমা সরকার, শাহেদ শরিফ খান, সাইফুল জার্নাল, সাবিনা দীপ্তি, শম্পা রেজা, অরুনা বিশ্বাস, আবুল কাশেম, মিলি মুন্সী, স্বাগতা, চান্দা মাহজাবিন, রেজাউল সুজন, আইনুন পুতুল, রুহুল, তূর্য, নাজাহ আলাইনা আরো অনেকে। জেল থেকে ছাড়া পেয়ে নন্দিনী মাহিনের বাসায় এসে ওঠে। রাইসা ফন্দি আঁটে মাহিনের কোম্পানী ও বাড়ি নিজের নামে লিখে নেয়ার। উকিলের সাথে সলাপরার্মশে সময় নন্দিনী সেটা শুনে ফেলে। নন্দিনী আরো জানতে পারে মাহিনের মা শারমিন এখনো বেঁচে আছে। কিন্তু রাইসাও জানে না সে কোথায় আছে। শারমিনকে খুঁজে পেলে মাহিনকে বাঁচানো সম্ভব। নন্দিনী, আলিয়া ও তারানা শারমিনকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করতে থাকে। দেয়ালে দেয়ালে হারানো বিজ্ঞপ্তি দেয়।

অন্যদিকে, শারমিন স্মৃতিভ্রষ্ট হয়ে রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে থাকে।

নন্দিনী কি খুঁজে পাবে শারমিনকে? নাটকের পরবর্তী কাহিনী দেখতে চোখ রাখুন দীপ্ত টিভির পর্দায়।

বাংলায় ডাবিংকৃত তুর্কি ধারাবাহিক ‘জননী জন্মভূমি ‘
প্রচারিত হচ্ছে শনি থেকে শুক্রবার প্রতিদিন রাত ৯টায়

“পাহাড়ি এলাকায় গোপণে সৈন্য জড়ো করার উদ্দেশ্য কী”

দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রে সাধারণ তুর্কি জনগণ দুইভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। একদল মুস্তফা কামাল পাশার নেতৃত্বে বিদেশী শক্তিকে হটানোর সাথে সাথে রাজতন্ত্রেরও বিলোপ চায়। অন্যদল রাজতন্ত্রের উপরই আস্থা রাখতে চায়। কৌশলে তেভফিক দু-পক্ষের মধ্যে দাঙ্গা বাঁধিয়ে দেয়। এই সমস্যা থেকে উত্তরণের উপায় কী? কামাল পাশার নির্দেশে ইযমির হয়ে ইস্তাম্বুলে যাবেন মেজলিশ-ই-মেবুসানের (অটোম্যান পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ) গুরুত্বপূর্ণ সদস্য রিযা বে। দেশের স্বার্থে রিযা বে’র ইস্তাম্বুলে পৌঁছানো খুব জরুরি। কিন্তু ওনাকে পাওয়ামাত্র হত্যা করতে চায় জেনারেল ভাসিলি, কর্নেল তেভফিক আর চার্লস হ্যামিল্টন। রিযা বে কি নিরাপদে পৌঁছাতে পারবেন? তেভফিকের অতীতের সকল অপকর্মের কথা জেনে যায় আজিযে।

আজিযে এখন কী করবে? আলি কেমাল আর হিলালের সহায়তায় পালিয়ে যাওয়ার সময় ব্রিগেডিয়ার স্টাভরোসের কাছে ধরা পরে যায় লিয়ন। স্টাভরোসকে লিয়নের ব্যাপারে কে জানালো? সেলানিকে গুলিবিদ্ধ হওয়ার আগে জেভদেত কর্ণেল নাযিমের কাছে একটা মূল্যবান হার দেখেছিলো, এতোবছর পর সেই হার আজিযের গলায় দেখে চমকে যায় জেভদেত! আজিযে জানায় হারটি তেভফিক দিয়েছে। এবার কি জেভদেত তেভফিকের উপর প্রতিশোধ নেবে? গোপণে একটা দূর্গম পাহাড়ি এলাকায় সৈন্য জড়ো করতে থাকে গ্রীক সেনাবাহিনী । ওদের উদ্দেশ্য কী? দেখতে চোখ রাখুন দীপ্ত টিভির পর্দায়।

‘জননী জন্মভূমি‘ ধারাবাহিকে কন্ঠাভিনয় করেছেন, দীপক সুমন (জেভদেত), রুবাইয়া মতিন গীতি (আজিযে), স্ঈাদ সুমন (তেভফিক), অশোক কুমার বসাক (এশরেফ পাশা), নাহিদ আখতার ইমু (হিলাল), মশিউর রহমান দিপু (লিয়ন), তানিয়া পাটোয়ারী (ইলদিয), খায়রুল আলম হিমু (আলি কেমাল), রাজু আহমেদ (ভাসিলি), জয়িতা মহলানবীশ (হাসিবে), মেরিনা মিতু (ভেরোনিকা) আরো অনেকে।

তুর্কি ধারাবাহিক ‘এইযেল’
প্রচারিত হচ্ছে সোম থেকে শুক্রবার প্রতিদিন রাত ১২টায়

বন্ধুদের প্রতারণার শিকার হয়ে ঘটনার পরিক্রমায় এক সহজ সরল ছেলের রহস্যময় গডফাদার হয়ে ওঠার গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে তুরস্কের এই জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘এইযেল’।
গল্পে ওমর নামের এক সাদামাটা ছেলেকে তার প্রেমিকা ও ঘনিষ্ট বন্ধুরা মিলে ফাঁদে ফেলে দুর্ধর্ষ ডাকাতি ও খুনের দায়ে ফাঁসিয়েদেয়। যাবজ্জীবন কারাদন্ডের সাজা হয় ওমরের। ঘটনাচক্রে সে জেল থেকে পালাতে সক্ষম হয়। প্রেমিকা এইশান, বন্ধু আলী ও জেঙ্গিযের উপর প্রতিশোধ নিতে ফিরে আসে অন্য নামে! অন্য পরিচয়ে! অন্য চেহারায়! ওমরকে ছাপিয়ে সে হয়ে ওঠে ‘এইযেল’। শুরু হয় তার প্রতিশোধের খেলা। কিন্তু ধীরে ধীরে দর্শককে কৌতুহলী করে তোলে নানা অজানা প্রশ্ন! এইশান কি সত্যি ওমরকে ভালোবাসতো? এইশানের সন্তান কি ওমরেরই সন্তান? ওমর কি আসলেই এইযেল হতে পেরেছে? না আগের মত এখনো সে ভালোবাসে এইশানকে? এইযেল কি পারবে প্রতিশোধ নিতে? যদি বা নেয় কী হবে তার পরিণাম? এইযেল কি সত্যি প্রতিশোধ নিতে চায়? নাকি তাকে অন্য কোন উদ্দেশ্যে ব্যবহার করছে আড়ালের কোন শক্তি? একের পর এক সুচতুর চাল। চাকচিক্যে ভরা অভিজ্যাত শ্রেনীর অন্তর্গত দ্বদ্ধ! আকর্ষনীয়া দুই নারী চরিত্র। সব মিলিয়ে দর্শককের জন্য রোমাঞ্চকর একটি তুর্কি ধারাবাহিক উপহার দিতে যাচ্ছে দীপ্ত টিভি ।

স্বাধীনতা দিবসে দীপ্ত টিভির অনুষ্ঠান সূচি ও হাইলাইট্স (বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০)

সকাল ০৭টা ০০মি. : সংগীতানুষ্ঠান: ‘দীপ্ত প্রভাতী‘

সকাল ০৯টা ০০মি. : বাংলা সিনেমা: চিত্রা নদীর পাড়ে

দুপুর ১২ টা ০০ মি. : দীপ্ত সংবাদ

দপুর ১২ টা ৩০ মি. : প্রামাণ্যচিত্র: পাহাড়ে মুক্তিযুদ্ধ

দুপুর ০১ টা ০০ মি.  :  তুর্কি ধারাবাহিক ‘জননী জন্মভূমি‘ (পূনঃপ্রচার)

দুপুর ০২টা ১০মি. : বাংলা সিনেমা: রাবেয়া

বিকাল ০৪টা ৩০মি. : বিটিভি সংবাদ

বিকাল ০৫টা ০০মি. : দীপ্ত সংবাদ

বিকাল ০৫টা ৩০মি.  :  প্রামাণ্যচিত্র: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণহত্যা

সন্ধ্যা ০৬টা ০০মি. : তুর্কি ধারাবাহিক ‘ফাতমাগুল‘ (পর্ব-৯৪)

সন্ধ্যা ০৭টা ০০মি. :  ধারাবাহিক নাটক: মান অভিমান (পর্ব-৩৭৪)

সন্ধ্যা ০৭টা ৩০মি. : তুর্কি ধারাবাহিক: সুলতান সুলেমান (পর্ব-২৯৯)

রাত ০৮টা ৩০মি.  : ধারাবাহিক নাটক: ভালোবাসার আলো-আঁধার (পর্ব-৩৭২)

রাত ০৯টা ০০মি. : তুর্কি ধারাবাহিক ‘জননী জন্মভূমি‘ (পর্ব-৯৩)

রাত ১০টা ০০মি. : ধারাবাহিক নাটক: বকুলপুর (পর্ব-২৪৩)

রাত ১০টা ৩০মি. : দীপ্ত সংবাদ

রাত ১১টা ০০মি. : তুর্কি ধারাবাহিক: সুলতান সুলেমান

রাত ১২টা ০০মি. : টকশো: দীপ্তর সাথে

Dating App
শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »