বার্তাবাংলা ডেস্ক »

ঢাকার বনানীতে দুই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িতরা যতই ক্ষমতাধর হোক, তাদের আইনের আওতায় নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। বৃহস্পতিবার মহাখালীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নারীদের হলিডে মার্কেটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ওই ঘটনার তদন্ত চলছে। তদন্ত অনুযায়ী যার নাম আসবে, যার গাফিলতি পাওয়া যাবে, যার অবস্থান এখানে ভিন্নতর থাকবে, যারা সহযোগিতা করছে বলে প্রমাণিত হবে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সে যেই হোক, যত ক্ষমতাধর ব্যক্তিই হোক।” এ সময় এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, অপরাধের ঘটনাস্থল বনানীর রেইনট্রি হোটেলের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে, যদি তাদের কোনো দোষ থাকে।
“ওই হোটেল কর্তৃপক্ষের যদি কোনো গাফিলতি থাকে, এই হোটেলের সংশ্লিষ্টতা যদি প্রমাণিত হয়, তাহলে তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেব।”

গত ২৮ মার্চ বনানীর ওই হোটেলে জন্মদিনের দাওয়াতে ডেকে নিয়ে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৬ মে মামলা হয় বনানী থানায়।

All Media Link

মামলার প্রধান আসামি আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদ, রেগনাম গ্রুপ ও পিকাসো রেস্তোরাঁর অন্যতম মালিক মোহাম্মদ হোসেন জনির ছেলে সাদমান শাফিক, সাফাতের দেহরক্ষী রহমত আলী এবং গাড়িচালক বিল্লাল হোসেনকে গ্রেপ্তারের পর রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

মামলার পঞ্চম আসামি নাঈম আশরাফ বা হাসান মোহাম্মদ হালিমকেও বুধবার রাতে মুন্সীগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। বাদী অভিযোগ করেছেন, সেদিন রাতে তাকে ও তার বান্ধবীকে জন্মদিনের দাওয়াতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন সাফাত ও নাঈম। বাকি তিনজন তাদের সহযোগিতা করেন।
ধর্ষণের ঘটনা গত ২৮ মার্চ ঘটলেও প্রভাবশালী আসামিদের হুমকির কারণে মামলা করতে দেরি করার কথা এজাহারে উল্লেখ করেছেন বাদী। পুলিশ সেই মামলা নিতে গড়িমসি করেছিল বলে অভিযোগ ওঠায় পুলিশের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটিও করা হয়েছে।

সরকারের কঠোর অবস্থানের কারণে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে দাবি করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এক বিদেশি সংস্থার প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বলেন, নিরাপত্তার দিক থেকে বাংলাদেশ পৃথিবীতে ৩৫তম স্থানে আছে।

“আমরা আজ সবকিছুই নিয়ন্ত্রণ করতে পারছি। জঙ্গি বলেন, সন্ত্রাস বলেন, দুর্নীতি বলেন, সবকিছূই একটা সীমাবদ্ধতার মধ্যে রেখেছি।” প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানা উদ্যোগের ফলে নারীরা এখন “সব জায়গায় সফল হচ্ছেন, এগিয়ে যাচ্ছেন” বলেও দাবি করেন আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
তিনি বলেন, মহাখালীর এই হলিডে মার্কেটের নারী উদ্যোক্তারা নিরাপদে এবং নির্বিঘ্নে যেন ব্যবসা করতে পারে সেজন্য পুলিশ নিরাপত্তা দেবে।

মহাখালীর ডিএনসিসি কিচেন মার্কেটের সামনের খালি জায়গায় এই হলিডে মার্কেটে প্রতি শুক্র ও শনিবার নিজেদের পণ্য নিয়ে বসতে পারবেন নারী উদ্যোক্তারা।

রাজধানীতে প্রতিবন্ধী নারীদের জন্যও একটি হলিডে মার্কেট করা হবে বলে জানান ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক।

তিনি বলেন, নারী উদ্যোক্তাদের জন্য ডিএনসিসির প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে হলিডে মার্কেট করা যায় কি না- তা ভেবে দেখা হচ্ছে।

গুলশান বনানী এলাকার গরিব রিকশাচালকদের ঋণ দেওয়ার জন্য উদ্যোগে নেওয়া হবে জানিয়ে মেয়র বলেন, ওই ঋণের ব্যাংক গ্যারান্টি সিটি করপোরেশন দেবে।

“রিকশার যারা মালিক উনারা নাকি দৈনিক ৩০০ টাকা করে নেন। আর গরিব রিকশাওয়ালা ৩০০ টাকা কামায় কিনা আমরা জানি না। এজন্য আমরা তাদের জন্য নতুন একটি প্রকল্প নেওয়ার চেষ্টা করছি। আমরা ব্যাংকারদের সঙ্গে কথা বলব।”

অন্যদের মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবাহুল ইসলাম, নারী অধিকার সংগঠন ফর দ্যা উইম্যান বাই দ্যা উইম্যানের সভাপতি শামসুন্নাহার, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মিজানুর রহমান জোদ্দার, ওয়েল গ্রুপের প্রধান নির্বাহী সাঈদ নুরুল ইসলাম, ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. নাছির, সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর আলেয়া সারোয়ার ডেইজি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

বার্তাবাংলা ডেস্কে আপনাকে স্বাগতম। বার্তাবাংলা (BartaBangla.com) প্রথম সারির একটি অনলাইন গণমাধ্যম; যেটি পরিচালিত হচ্ছে ইউরোপ এবং বাংলাদেশ থেকে। বার্তাবাংলা ডেস্কে রয়েছে নিবেদিতপ্রাণ তরুণ একঝাঁক সংবাদকর্মী। ২০১১ সালে যাত্রা ‍শুরু করা এই অনলাইন পত্রিকাটি এরই মধ্যে পেয়েছে ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা। দেশে-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা লাখো পাঠকই আমাদের পথচলার পাথেয়।

মন্তব্য করুন »