বার্তাবাংলা ডেস্ক »

অস্ট্রেলিয়ায় পার্লামেন্ট অধিবেশন চলাকালে দুই মাস বয়সী সন্তানকে বুকের দুধ খাইয়ে ইতিহাস গড়লেন কুইন্সল্যান্ডের সিনেটর লেরিসা ওয়াটার্স। এর মধ্য দিয়ে ইতিহাসের অংশ হলো তাঁর মেয়ে আলিয়া জয়। দেশটিতে ছোট্ট আলিয়াই প্রথম শিশু যে পার্লামেন্ট অধিবেশনে মায়ের কোলে চড়ে দুধ খেল।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, আলিয়ার মা লেরিসা অস্ট্রেলিয়ার গ্রিন পার্টির সহউপনেতা। মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষ করে গতকাল মঙ্গলবার তিনি মেয়েকে কোলে নিয়ে পার্লামেন্টের অধিবেশনে যোগ দেন। অধিবেশন চলাকালে ক্ষুধায় কাঁদতে থাকে আলিয়া। এরপর সেখানে বসেই মেয়েকে খাওয়ান এই সিনেটর।

নিজের টুইটারে লেরিসা ওয়াটার্স লিখেছেন, ‘আমার মেয়ে আলিয়া প্রথম শিশু যে পার্লামেন্টের ভেতরে বুকের দুধ খেল। আমি গর্বিত।’ তিনি আরও লেখেন, ‘আমরা চাই পার্লামেন্টে আরও অধিক সংখ্যক নারী ও বাবা-মায়েরা আসুক।’

All Media Link

অস্ট্রেলিয়ায় শিশুদের নিয়ে পার্লামেন্টে যাওয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা ছিল। গত বছরই এটি বাতিল করা হয়। এর মাধ্যমে শিশুদের নিয়ে নারী আইন প্রণেতাদের পার্লামেন্টে আসার পথ সুগম হয়। নিষেধাজ্ঞার বিধান বাতিলের ব্যাপারে সোচ্চার আইনপ্রণেতাদের অন্যতম ছিলেন লেরিসা। গত নভেম্বরে তিনি বলেন, ‘আমরা যদি আরও অধিক সংখ্যক কম বয়সী নারীকে আইনপ্রণেতা হিসেবে পার্লামেন্টে চাই, তবে পরিবারবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। নতুন মা ও বাবারা যাতে পার্লামেন্টের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সন্তানের দেখভালও করতে পারেন, সে ব্যবস্থা নিতে হবে।’

লেরিসা ওয়াটার্স বলেছেন, ‘লৈঙ্গিক সমতা অর্জন ও জলবায়ু পরিবর্তনে আমাদের কাজ অব্যাহত রাখার ব্যাপারে আলিয়া প্রেরণা জোগাবে। আর অবশ্যই সে যদি ক্ষুধার্ত বোধ করে অধিবেশন কক্ষে বসে মায়ের বুকের দুধ খাবে।’

তবে আলিয়া বিশ্বে প্রথম শিশু নয় যে পার্লামেন্টে বসে বুকের দুধ খেয়েছে। ২০১৬ সালে আইসল্যান্ডের ইন্ডিপেনডেন্স পার্টির একজন আইনপ্রণেতা পার্লামেন্টে বসে তাঁর এক মাস বয়সী শিশুকে বুকের দুধ খাইয়েছিলেন।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

বার্তাবাংলা ডেস্কে আপনাকে স্বাগতম। বার্তাবাংলা (BartaBangla.com) প্রথম সারির একটি অনলাইন গণমাধ্যম; যেটি পরিচালিত হচ্ছে ইউরোপ এবং বাংলাদেশ থেকে। বার্তাবাংলা ডেস্কে রয়েছে নিবেদিতপ্রাণ তরুণ একঝাঁক সংবাদকর্মী। ২০১১ সালে যাত্রা ‍শুরু করা এই অনলাইন পত্রিকাটি এরই মধ্যে পেয়েছে ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা। দেশে-বিদেশে ছড়িয়ে থাকা লাখো পাঠকই আমাদের পথচলার পাথেয়।

মন্তব্য করুন »