বার্তাবাংলা ডেস্ক »

এসএচৌধুরী,মৌলভীবাজার:: রেল সেতুতে আবারো অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। সিলেট-আখাউড়া রেলপথের-জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ রেলওয়ে ষ্টেশনের অদূরে বালিগাঁও এলাকায় গতকাল রোববার দিবাগত রাত আড়াইটায় এ ঘটনাটি ঘটে। রেলের গ্যাং ম্যান (রেলপথ তদারককারী) ও পুলিশের সহায়তায় আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়। হরতালের সমর্থনকারীদের নাশকতামূলক আচরণে রেলপথে তদারকি বৃদ্ধি করা হয় ।
ভানুগাছ রেলওয়ে ষ্টেশন সূত্রে জানা যায়, রোববার দিবাগত রাত আড়াইটায় দুর্বৃত্তরা ভানুগাছ রেলওয়ে ষ্টেশনের অদূরে বালিগাঁও এলাকার রেল সেতুর কাঠের স্লিপারে আগুন ধরিয়ে দিলে রাতের টহল পুলিশ ও রেলপথ তদারককারীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলেন। কমলগঞ্জ থানার ওসি নীহার রঞ্জন নাথ রেলপথের স্লিপারে আগুনের কথা স্বীকার করে বলেন, পুলিশ রাতভর জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানসমূহ পাহারা দিচ্ছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের গণপূর্ত (রেল) শ্রীমঙ্গলস্থ উপ-সহকারী প্রকৌশলী রেনু মিয়া বলেন, ভানুগাছের বালিগাঁও এলাকায় দুর্বৃত্তরা সেতুর কাঠের স্লিপারে আগুন ধরানোর চেষ্টা করেছিল। সতর্কতা বৃদ্ধি করায় দুর্বৃত্তরা সফল হতে পারেনি বলে তিনি আরো বলেন, রেলপথ নিরাপদ রাখার জন্য স্বল্প জনবল নিয়ে গ্যাং ম্যান (রেলপথ তদারককারী)-রা সার্বক্ষনিক কাজ করছে। এখন স্থানীয় জনগনও এ কাজে এগিয়ে আসতে হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বলেন, হরতালের সমর্থনকারীরা রেল সেতুর কাঠের স্লিপারে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। এদিকে আজ সোমবার ভোর রাতে হরতাল সমর্থনকারীরা কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা রেলওয়ে ষ্টেশনের অদূরে গাছ কেটে রেলপথের উপর ফেলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেছিল। রেলের সংশ্লিষ্ট কর্মচারীরা সোমবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে কাটা গাছগুলো সরিয়ে নিলে প্রায় দুই ঘন্টা পর পুনরায় সিলেট-আখাউড়া রেলপথে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্য করুন »