বার্তাবাংলা ডেস্ক »

duবার্তবাংলা রিপোর্ট :: জাতীয় পতাকা উৎসবের অংশ হিসেবে জাতীয় শহীদ মিনার থেকে কলাভবন পর্যন্ত ১’শ ফুট পতাকা নিয়ে র‌্যালি করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়ধ্বনি সাংস্কৃতিক সংগঠন।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় শহীদ মিনার থেকে এ ৠালি শুরু হয়। পরে কলাভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। র‌্যালিতে সবাই জাতীয় পতাকা নিয়ে অংশ নেয়। পরে কলাভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

তৃতীয় বারের মতো  আয়োজিত এ পতাকা উৎসবের শনিবার শেষ দিন।

All Media Link

ৠালিতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, কমিউনিস্ট পাটির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবিএম তাজুল ইসলাম, অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হকসহ  সামাজিক, রাজনৈতিক ও সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

`আমাদের পতাকা, আমাদের অর্জন` স্লোগানকে ধারণ করে শুক্রবার শুরু হয় দুই দিনব্যাপী জাতীয় পতাকা উৎসব। শুক্রবার সকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনে উৎসবের উদ্বোধন করেন স্বাধীন বাংলাদেশের মানচিত্র খচিত পতাকার ডিজাইনার শিব নারায়ণ দাশ।

১৯৭১ সালের ২ মার্চ হাজার হাজার ছাত্র-জনতার উপস্থিতিতে তৎকালীন ডাকসুর ভিপি আ স ম আব্দুর রব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা সংলগ্ন বর্তমান ডিন অফিসের গেটে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন করেন। পতাকা উত্তোলনের সেই প্রথম দিনটি স্মরণ এবং তরুণ প্রজন্মকে বিষয়টি জানাতেই দু`দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধের উপ- প্রধান সেনাপতি পরিকল্পনামন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) এ কে খন্দকার বলেন, সারা জাতি আজ রুখে দাঁড়িয়েছে যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে। আমাদের ভবিষ্যৎ হচ্ছে তরুণ প্রজন্ম। এর জন্য আমরা সেক্টর কমান্ডার্স ফোরাম সাত বছর ঘুরে বেড়িয়েছি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। তরুণরা শাহবাগে আন্দোলন শুরু করেছে- তারা সফল হবেই।

শিব নারায়ণ দাশ বলেন, বঙ্গবন্ধু ও জয় বাংলা স্লোগানকে যে দলীয়করণ করা হয়েছে তা বন্ধ করতে হবে। এসব বিকৃতি কারা করেছে, কারা করতে পারে তা সবার জানা। কোনো ব্যক্তি যদি লক্ষ্য ছেড়ে অলক্ষ্যকে বা দেবতাকে ছেড়ে বাহনকে পূজা করে, তার শাস্তি অবধারিত। অনুষ্ঠানে শিব নারায়ণ দাশকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয়।

জাতীয় পতাকা উৎসব-২০১৩`র আহ্বায়ক নাজমুল হোসেনের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. একে আজাদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী, জাতীয় পতাকা উৎসব-২০১৩ এর প্রধান উপদেষ্টা ও অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হক প্রমুখ।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »