বার্তাবাংলা ডেস্ক »

এক সংসদ সদস্য ডিজনি চ্যানেলে সম্প্রচারিত এই কার্টুনটি সম্প্রচার বন্ধের আহ্বান জানানোর ১১ দিনের মধ্যে তথ্যমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সংসদে একথা জানিয়েছেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, কার্টুন ছবি ডোরেমন প্রচারে শিশুদের পড়ালেখার পরিবেশ বিনষ্ট হবে, এটা সরকারের কাম্য নয়।

“ইতোমধ্যে সরকার অনুমোদনহীন বিদেশি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল ডিজনি, ডিজনি এক্সডি ও পোগো সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। এর ফলে ডোরেমন কার্টুন সম্প্রচার বন্ধ হয়েছে।”ডিজনি চ্যানেলে প্রচারিত জাপানি কার্টুন ডোরেমন দেশে শিশুদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়। তবে হিন্দিতে ভাষান্তরিত এই কার্টুন নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে অনেক অভিভাবকের।

All Media Link

হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদের এক প্রশ্নের জবাবে ডোরেমন সম্প্রচার বন্ধের বিষয়টি মন্ত্রী জানান।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি সংসদ সদস্য শাহরিয়ার আলম ডোরেমন বন্ধের দাবি তুলে সংসদে বলেছিলেন, এর মতো কার্টুনের প্রভাবে শিশুরা বাংলা বলতে ভুলে যাচ্ছে ও তাদের মনোবিকাশ ব্যাহত হচ্ছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, উন্মুক্ত আকাশ সংস্কৃতির যুগে গণমাধ্যমে দেশীয় সংস্কৃতিনির্ভর অনুষ্ঠান অব্যাহতভাবে প্রচার হচ্ছে।

“দেশের সংস্কৃতির পরিপন্থী কোনো বিষয় যাতে প্রচার না হয়, সে বিষয়ে সরকার সতর্ক এবং এ ধরনের বিষয় প্রচার হলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

ইনু জানান, বিদেশি যেসব চ্যানেল বাংলাদেশের ইতিহাস, সংস্কৃতিতে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে, সেই সব চ্যানেল বন্ধের ব্যবস্থাও নেয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশের চ্যানেল ভারতে প্রচারের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিদ্যমান আমদানি নীতিতে বাংলাদেশে ভারতীয় চলচ্চিত প্রদর্শনের কোনো সুযোগ নেই।

তিনি জানান, বিদ্যমান বিধি-বিধান অনুযায়ী তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে দেশে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ও দৈনিক পত্রিকাগুলোকে বিজ্ঞাপন দেয়া হয় না। শুধু বিভিন্ন জাতীয় দিবসে সরকারি ব্যয়ে ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়।

ক্রোড়পত্র থেকে পত্রিকাগুলি সরকারকে শতকরা ২ ভাগ হারে সারচার্জ দেয়।

এ থেকে ২০০৯-১০ অর্থবছরে ৭ লাখ ৯৪ হাজার, ২০১০-১১ অর্থবছরে ১২ লাখ ৩৪ হাজার এবং ২০১১-১২ অর্থ-বছরে ১১ লাখ ৫৪ হাজার টাকা আয় হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্যসমূহ »

মন্তব্য করুন »