সিঙ্গাপুরে আতঙ্কে বাংলাদেশিরা

ফারজানা তন্বী »

সিঙ্গাপুরে জঙ্গি সন্দেহে এখন পর্যন্ত ৪০ জন বাংলাদেশি আটকের ঘটনায় উৎকণ্ঠায় আছেন সেখানকার প্রবাসী বাংলাদেশিরা। তাঁরা বলছেন, শ্রমিকদের আবাসস্থলে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সিঙ্গাপুরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও বুধবার বিবৃতি দিয়ে নজরদারি বাড়ানোর কথা জানিয়েছে। অন্যদিকে জনশক্তি রপ্তানিকারকেরা বলছেন, সিঙ্গাপুরের অনেক মালিক এখন বাংলাদেশি নিয়োগে আগ্রহ হারাচ্ছেন।

সিঙ্গাপুরের অতি ঝুঁকিপূর্ণ বা অতি গুরুত্বপূর্ণ কোনো নির্মাণকাজে বাংলাদেশি কর্মীদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না। এর বদলে ভারতীয়রা সেখানে নিয়োগ পাচ্ছেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ থেকে এখন যাঁরা যাচ্ছেন, অনেক যাচাই-বাছাইয়ের পর তাঁদের সিঙ্গাপুরে আসার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। দ্রুত সমস্যার সমাধান করতে না পারলে এই বছরের শেষে সিঙ্গাপুরে অন্তত ১০টি বড় প্রকল্পে বাংলাদেশিরা না-ও নিয়োগ পেতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন জনশক্তি রপ্তানিকারকেরা।

বুধবার সিঙ্গাপুরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের ওপর নজরদারি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, গত বছরের শেষ দিকে জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগে ২৭ বাংলাদেশিকে আটকের পর স্বরাষ্ট্র ও জনশক্তি মন্ত্রণালয় বাংলাদেশি শ্রমিকদের ব্যাপারে খোঁজখবর বাড়িয়েছে। বাংলাদেশিরা যেসব জায়গায় থাকছেন, সেখানে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।

All Media Link

সিঙ্গাপুরের নির্মাণ খাত, জাহাজশিল্প ও প্রক্রিয়াজাত শিল্পে দেড় থেকে দুই লাখ বাংলাদেশি কাজ করছেন। প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়, জনশক্তি রপ্তানিকারক ও সিঙ্গাপুরপ্রবাসীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১৯৭৯ সালে ১১০ জন বাংলাদেশি দেশটিতে কাজ করতে যান। ধীরে ধীরে এই সংখ্যা বাড়তে থাকে। নব্বইয়ের দশক থেকে নির্মাণ ও জাহাজশ্রমিক হিসেবে বিপুলসংখ্যক বাংলাদেশি সেখানে যেতে শুরু করেন।

জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্য অনুযায়ী, ১৯৭৬ থেকে ২০১৬ সালের এপ্রিল পর্যন্ত ৬ লাখ ১৫ হাজার ৫২২ জন বাংলাদেশি সিঙ্গাপুরে কাজ করতে গেছেন। গত বছরও ৫৫ হাজার ৫২৩ জন বাংলাদেশি সেখানে প্রবাসী হয়েছেন। আর এ বছরের চার মাসে গেছেন ১৯ হাজার ২১৮ জন। সূত্র : প্রথম আলো

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্যসমূহ »

মন্তব্য করুন »