বার্তাবাংলা ডেস্ক »

8

বার্তাবাংলা ডেস্ক ::ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের ৬০ আসনের বিধানসভার নির্বাচন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে একটানা এই ভোটগ্রহণ বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে বলে ত্রিপুরার প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা আশুতোষ জিনদাল জানিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, সকাল ১০ টার মধ্যেই ৩০ শতাংশ ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

All Media Link

সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ শেষে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন শুরু হয়েছে সকাল ৭টায় ভোটগ্রহণ শুরুর আগে থেকেই।

সময় গড়ানোর সঙ্গে এই লাইন আরো দীর্ঘ হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তা জিনদাল বলেন, “আমি আশা করছি বিকাল ৪ টায় ভোটগ্রহণ শেষ হবে। ২০০৮ সালে ত্রিপুরায় রেকর্ড ৯৩ শতাংশ ভোটার ভোট দিয়েছিলেন।”

এবারের নির্বাচনে সরাসরি ত্রিপুরায় ক্ষমতাসীন বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। সর্বশেষ ত্রিপুরাতেই ভারতের বামফ্রন্টের ক্ষমতায় থাকার লড়াই।

এরআগে পশ্চিমবঙ্গ ও কেরালায় নির্বাচনে হেরে যায় কমিউনিস্টরা।

ত্রিপুরায় ২০ বছর ধরে ক্ষমতায় রয়েছে বামফ্রন্ট। রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার ১৫ বছর ধরে দায়িত্বপালন করছেন। তিনি সিপিএম’র পলিটব্যুরোর সদস্য।

৬০ আসনের বিধান সভা নির্বাচনে বামফ্রন্ট ৬০ আসনেই প্রার্থী দিয়েছে। অপরদিকে কংগ্রেস ৪৮ আসনে ও তার মিত্র রাজনৈতিক সংগঠন ইন্ডিজেনাস ন্যাশানালিস্ট পার্টি অব ত্রিপুরা ১১ আসনে এবং অপর রাজনৈতিক মিত্র ন্যাশনাল কাউন্সিল অব ত্রিপুরা ১টি আসনে প্রার্থী দিয়েছে।

ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) ত্রিপুরায় নিজেদের অবস্থান শক্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তারা ৫০টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

এবারের নির্বাচনে ১৫ জন নারীসহ মোট ২৪৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এক নির্বাচনী কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় ৪০ হাজার আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যসহ অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

এই নির্বাচনে ২৩ লাখ ৫৫ হাজার ৪৪৬ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। ভোটারদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই নারী বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

ত্রিপুরায় এর আগের নির্বাচনে কংগ্রেসকে ধসিয়ে দিয়ে বামফ্রন্ট ৪৯টি আসনে জয়ী হয়েছিল।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »