বার্তাবাংলা ডেস্ক »

otoa.shabagজোহরা ফেরদৌসি, কানাডা থেকে :: বুধবার কানাডার কার্লটন ইউনিভার্সিটির ইউনিসেন্টারে কার্লটন ও অটোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা শাহবাগের চলমান গণজাগরনের সাথে একাত্মতায় একটি সংহতি সমাবেশের আয়োজন করে। অটোয়ার বাংলাদেশী অভিবাসী শিশু ও নারী, পুরুষ অংশগ্রহন করে এই আয়োজনে । অটোয়ার প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধারাও সংহতি প্রকাশ করেন এই আয়োজনে । রাজাকারদের ব্যঙ্গাত্মক ক্যনভাসে ঘৃণা প্রকাশ করে স্বার, প্ল্যাকার্ডে, ব্যানারে, লাল সবুজ পতাকায় আর সমবেত দেশের গানের মধ্য দিয়ে অটোয়ার বাংলাদেশী অভিবাসীরা একাত্মতা জানাচ্ছে শাহবাগের গণ আন্দোলনের প্রতি। প্রতিধ্বনি তুলেছে, ‘ভুলি নাই, ভুলব না কোনদিন’, তিরিশ ল শহীদের রক্ত বৃথা যেতে দেব না’, ‘একাত্তরের রাজাকার বাংলা ছাড়’ । সকল রাজনৈতিক দল, মতের উর্ধ্বে ওঠা এ এক নতুন প্রজন্ম, যারা এক নতুন ইতিহাস রচনা করছে । গত ৪২ বছরের না হওয়া বিচারের দাবী তারা আজ আদায় করেই ছাড়বে । কারন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবী কখনো তামাদি হয় না ।

সংহতি সমাবেশে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসী ত্বরান্বিত করার দাবী রেখে বক্তব্য রাখেন এই আয়োজনের তরুণ উদ্যোক্তা কার্লটন ইউনিভার্সিটির মাস্টার্সের ছাত্র হাসান মাহমুদ টিপু এবং হোমায়রা কবির সানাম। মুক্তিযোদ্ধাদের প থেকে মুক্তিযুদ্ধের অভিজ্ঞতা বর্নণা করে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন সালেহিন চৌধুরী উচ্ছাস। বাংলাদেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে বিচারাধীন যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসীর দাবীর কথা জানান বক্তারা।

ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন »

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

আমি ফারজানা চৌধুরী তন্বী। লেখালিখি করি ফারজানা তন্বী নামে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর আজ প্রায় পাঁচ বছর ধরে লেখালিখির সঙ্গেই আছি। বার্তাবাংলা’য় কাজ করছি সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে। আমার বিশেষ আগ্রহের ক্ষেত্র ফিচার, প্রযুক্তি আর লাইফস্টাইল। ভালো লাগে ভ্রমণ, বইপড়া, বাগান করা আর ইন্টারনেট নিয়ে পড়ে থাকা :)

মন্তব্য করুন »